হার্ট ভালো রাখার ৫টি খাদ্য

হার্ট ভালো রাখার ৫টি খাদ্য

আপনার খাদ্য নির্ধারণ করে আপনার স্বাস্থ্য কেমন থাকবে। যা-ই খাবেন, তা-ই আপনার অঙ্গপ্রত্যঙ্গের উপর প্রভাব ফেলবে, এমনকি হৃদপিন্ডও বাদ যাবে না। এবং হৃদপিন্ড এতটাই গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ যে অসংখ্য পুষ্টিউপাদান লাগে একে সুস্থ রাখতে। বেশ কিছু পুষ্টি উপাদান আছে যা সঠিকভাবে গ্রহণ করলে দেহের চাহিদা পূরণ হবে, ফলে সুস্থ থাকবে দেহ। আলোচনায় আসছে ৫টি খাদ্য উপাদান।

Omega-3 Fatty Acid

American Heart Association-এর মতে হৃদরোগ এড়াতে omega-3 fatty acid-সমৃদ্ধ মাছ খাওয়া দরকার। মাছে আছে unsaturated fatty acid, যা cholesterol level ঠিক রাখে। Omega-3 fatty acid রক্তনালির ক্ষয়রোধ করে, ফলে দেহে জ্বালাপোড়া নিরাময় হয়। চর্বিযুক্ত মাছ, যেমন স্যালমন, ম্যাকারেল, টুনা এবং সারডিন omega-3 fatty acid-এর শ্রেষ্ঠ উৎস।

Vitamin

হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে vitamin Eএবং Cবেশি বেশি গ্রহণ করা দরকার। Vitamin D-ও আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যা সবচেয়ে সহজে পাওয়া যায় সূর্যালোক থেকে। পেঁপে, ব্রকোলি এবং সবুজ শাকসবজিতে vitamin C থাকে। Vitamin E পাওয়া যাবে বেল মরিচ, অ্যাসপ্যারাগাস, শাক এবং শালগমে।

Fibre

Bad cholesterol-কে কমিয়ে দেয় দ্রবণীয় fibre। এতে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়। প্রক্রিয়াজাত দানাদার খাদ্যের বদলে fibre-সমৃদ্ধ দানাদার খাদ্য গ্রহণে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়। রক্তচাপ ও ওজন রাখবে সঠিক মাত্রায়। তাই নিত্যকার খাদ্যতালিকায় কলা, কমলা, দানাদার খাদ্য, কলাই ও বাদাম রাখা যেতে পারে।

Antioxidant

Antioxidant-সমৃদ্ধ খাদ্যগ্রহণে হৃদরোগ প্রতিরোধ সম্ভব। Antioxidantধমণীর একদম ভেতরের অংশসহ দেহের কোষক্ষয় রোধ করে, এমনকি সারিয়েও তোলে। ধমণীতে plaque জমতে দেয় না। এতে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমে। Antioxidant-সমৃদ্ধ খাদ্যের তালিকায় আছে পেঁয়াজ, রসুন, সামুদ্রিক খাদত, পূর্ণ দানা, সবুজ শাকসবজি, দুধ, গাজর ইত্যাদি।

Magnesium

Magnesium-সমৃদ্ধ খাদ্যগ্রহণে metabolic syndrome(যা হৃদরোগ ও ডায়াবেটিসের দিকে ঠেলে নিয়ে যায়) রোধ করা যায়। Magnesium-সমৃদ্ধ খাদ্যের তালিকায় আছে কলা, কিশমিশ এবং কাজুবাদাম। এসব খাদ্য গ্রহণের মাধ্যমে metabolic syndrome প্রতিরোধ এবং blood sugar level সঠিক রাখা সম্ভব হয়। রক্তচাপ ও triglyceride-ও কমবে। তাই কিছু খাদ্য আপনার খাদ্যতালিকায় যোগ করতে পারেন, যেমন শাক, পাতাকপি, বাদাম, কলাই, ব্রকোলি, সামুদ্রিক খাদ্য, কাঁচা সীম, কলা এবং অ্যাভোকাডো।

 টিপসটি ভালো লাগলে Like দিন, টিপসটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস পেতে (বিডি হেলথ টিপসের) এর সাথে থাকুন ।